স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও জনগণের ভোটের অধিকার নেই : মির্জা ফখরুল

স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও জনগণের ভোটের অধিকার নেই : মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, যে লক্ষ্য, স্বপ্ন আর আশা-আকাঙ্ক্ষা নিয়ে আমরা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলাম তা ধূলিসাৎ হয়ে গেছে। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পরও জনগণের ভোটের অধিকার নেই। তাদের স্বাধীনতা নেই, সংগঠনের অধিকার নেই। বাংলাদেশ সম্পূর্ণভাবে একটি ফ্যাসিবাদী ও কর্তৃত্ববাদী শাসনের কবলে পড়েছে।

শনিবার (২৬ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের, আমরা এমন সময় স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পালন করছি, সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি। যে সময় বাংলাদেশ থেকে গণতন্ত্র নির্বাসিত হয়েছে।

তিনি বলেন, মিথ্যা মামলায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারারুদ্ধ হয়ে আছেন। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান মিথ্যা মামলায় নির্বাসিত অবস্থায় আছেন। ৩৫ লাখ গণতন্ত্রকামী নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, ৬০০ এর বেশি নেতা-কর্মীকে গুম করা হয়েছে। সহস্রাধিক নেতা-কর্মী খুন হয়েছেন। কী একটা ভয়াবহ, দুর্বিষহ স্বৈরাচারীর কবলে দেশ আজ রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এমন অবস্থায় অমরা স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর উৎযাপন করতে এসে শপথ নিয়েছি। পঞ্চাশ বছর আগে যেমন আমরা দেশকে মুক্ত করার জন্য যুদ্ধ করেছি, এখন আবার আমরা যুদ্ধ করব। যুদ্ধ করে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করব। তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনব। তাদের নেতৃত্বে আমরা আবার দেশের মানুষকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেব। নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দিয়ে দেশে জনগণের সরকার ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করব। সেই রাষ্ট্র হবে মুক্ত রাষ্ট্র।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top