ইবিতে প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন

ইবিতে প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. নিলুফা আক্তারের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করেছে হলটির শতাধিক আবাসিক শিক্ষার্থী। গতকাল রোববার রাত ১০টার দিকে হলের ভেতরে প্রধান ফটকে বসে বিভিন্ন স্লোগান দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

এ সময় ছাত্রীরা ‘প্রভোস্টের পদত্যাগ চাই, স্বৈরাচারী আচরণ চলবে না, প্রভোস্টের টালবাহানা চলবে না চলবে না’ প্রভৃতি স্লোগান দেন। তাৎক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি এসে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন। কিন্তু এতে সায় দেননি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।


আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, ‘রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের রাজিয়া সুলতানা অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ব্যথায় অজ্ঞান হয়ে যান। তখন তাঁর সহপাঠীরা প্রভোস্টকে ফোন দেন। কিন্তু তিনি ফোন ধরে না। কয়েকবার ফোন দেওয়ার পর তিনি ফোন ধরেন। তখন তিনি ফোনেই ছাত্রীদের সঙ্গে অসদাচরণ করেন। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সকে ফোন দেওয়া হলে তাঁরাও ফোন ধরে না। পরে ফোন ধরলে প্রায় ৪৩ মিনিট পর অ্যাম্বুলেন্স আসে। অ্যাম্বুলেন্স করে অসুস্থ ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।’

পরবর্তীতে রাত সাড়ে ১১টায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করতে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া এবং প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন। শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে আলোচনায় বসে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দাবি জানায়। দাবিগুলো হলো—প্রভোস্টের নিয়মমাফিক হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অসদাচরণ, হলে মাঝে মাঝে চুরি, সিট বাণিজ্য, হলে বহিরাগতর প্রবেশ, ওয়াশরুম ব্যবহারের অনুপযোগী, ইন্টারনেট সমস্যা ও ডাইনিংয়ের খাবারের মান নিম্নমানের।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে আলোচনা করেন। শিক্ষার্থীদের সকল দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত করেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা হলে এসে অনেক বিষয় সম্পর্কে জানলাম। যেসব বিষয় আমরা কখনো শুনিনি। পর্যায়ক্রমে সকল সমস্যার সমাধান করা হবে। প্রতিটি হলেই এসব ক্ষেত্রে নজরদারি করা হবে।’




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top