যোগদানের ২ দিনের মাথায় ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার সেই ওসিকে বদলি

যোগদানের ২ দিনের মাথায় ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার সেই ওসিকে বদলি

দায়িত্ব নেওয়ার দুই দিনের মাথায় সংবাদ সম্মেলন করে বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়ার পর সেই পুলিশ কর্মকর্তাকে স্ট্যান্ড রিলিজ (তাৎক্ষণিক বদলি) দিয়ে মাদারীপুর হাইওয়ে রিজিওনাল অফিসে সংযুক্ত করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (৮ এপ্রিল) সকালে এক লিখিত আদেশ পাওয়ার পর তিনি ভাঙ্গা ছেড়ে মাদারীপুরে চলে যান। গত ৬ এপ্রিল হাইওয়ে ভাঙ্গা থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন এ এস এম আসাদউজ্জামান।

যোগদানের পর গত বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে ভাঙ্গা থানা হাইওয়ে পুলিশের কার্যালয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন তিনি। সেখানে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান আসাদউজ্জামান।

তার সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যের শেষ বাক্য ব্যাপক আলোচিত হয়। ওই লাইনে লেখা ছিল, ‘হাইওয়ে পুলিশ ব্যতীত অন্য কোনো সংগঠন বা ব্যক্তি মহাসড়কে চাঁদাবাজি করলে তার দায়-দায়িত্ব হাইওয়ে পুলিশ নেবে না।’

এ খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। এরপরই যোগদানের দুইদিনের মাথায় তাকে বদলি করা হলো।

ওই লিখিত বক্তব্যে এএসএম আসাদউজ্জামান বলেন, ‘আসসালামু আলাইকুম, ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার পক্ষ থেকে আমি পুলিশ পরিদর্শক এএসএম আসাদউজ্জামান উপস্থিত বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সকল সাংবাদিক ভাইদের প্রতি রমজানের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আপনাদের এখানে আমন্ত্রণের উদ্দেশ্য হলো ইতোপূর্বে অত্র থানার অফিসার ইনচার্জের দায়িত্বে থেকে যারা বিভিন্ন পরিবহন, বিভিন্ন টোকেন কিংবা মান্থলি (মাসিক) বাণিজ্যর সঙ্গে জড়িত ছিলেন বা তাদের নামে উৎকোচ (ঘুষ) আদায় হতো। আজ থেকে বন্ধ বলে ঘোষণা করছি। যদি অত্র থানার কোনো পুলিশ সদস্য উহার সঙ্গে জড়িত থাকে, তার দায়-দায়িত্ব তাকেই বহন করতে হবে। মহাসড়কে কোনো রকম চাঁদাবাজি চলবে না মর্মে অঙ্গীকার করিতেছি। তবে বেপরোয়া গতি, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত মোটরযান চালানো ও মোটরসাইকেলে হেলমেট ব্যতীত তিনজন আরোহী ও অবৈধ থ্রি-হুইলারের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। হাইওয়ে পুলিশ ব্যতীত অন্য কোনো সংগঠন বা ব্যক্তি মহাসড়কে চাঁদাবাজি করিলে তার দায়-দায়িত্ব হাইওয়ে পুলিশ গ্রহণ করিবে না।’

এ বিষয়ে হাইওয়ে পুলিশের ফরিদপুর-মাদারীপুর রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত না করে সংবাদ সম্মেলন করে অসঙ্গতিপূর্ণ কথা বলেছিলেন আসাদউজ্জামান। তার সংবাদ সম্মেলনে ভাষাগত কিছু ভুল ছিল। শুক্রবার (৮ এপ্রিল) তাকে মাদারীপুর হাইওয়ে পুলিশের কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহ আলম বলেন, বদলির আদেশ পেয়ে আসাদউজ্জামান শুক্রবারই মাদারীপুর চলে গেছেন। তবে তাকে কী কারণে বদলি করা হয়েছে তা বদলির আদেশে উল্লেখ করা হয়নি।

তিনি জানান, বর্তমানে তিনি (শাহ আলম) হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল রাতে ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলমকে সিলেট রেঞ্জে বদলি করা হয়। এরপর সেদিন আসাদউজ্জামানকে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়। দায়িত্ব পাওয়ার দুই দিনের মাথায় তাকেও বদলি করা হলো।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top